ফাইভারে নতুন অবস্থায় কিভাবে কাজ করবেন?


ফাইভারে নতুন অবস্থায় কিভাবে কাজ করবেন?

আপনি যত কম দামে কাজ করতে চাইবেন ক্লায়েন্ট আপনাকে ততো কম মানের ফ্রিল্যান্সার মনে করবেন ।
আবার অনেক বেশি চাইবেন তো ক্লায়েন্ট এমন দৌড় দিবে আর জীবনে পিছন ফিরে তাকাবে না ।
কাজেই কাজের ব্যাপারে সব সময় ক্লায়েন্টকে প্রাধান্য দেন । বাজেটের ব্যাপারে তাকে ছেড়ে দেন, তিনি যাতে নিঃসংকোচে বলতে পারে তার বাজেট কত ।

ক্লায়েন্টকে কিভাবে খুশি রাখবেন?
আপনি শুধু বোঝার চেষ্টা করেন কাজের প্রতি তার রুচিবোধ এবং খরচ করার মানসিকতা কেমন । তবে তিনি যে মানসিকতার লোক হোক না কেন কাজের ব্যাপারে আপনি আপনার সেরাটি দেয়ার চেষ্টা করুন বাজেট যত অল্প হোক আর বেশি হোক।
১। যেই ক্লায়েন্টের সঙ্গে একবার কাজ করবেন, এমনভাবে কাজ করবেন, যাতে আপনি তার সঙ্গে দীর্ঘমেয়াদি কাজ করতে পারেন । অর্থাৎ পরবর্তীতে যেন আপনাকে আবার খুঁজে নেয় । প্রথম বাজেট যতই কম হোক না কেন, আপনার কাজের মান যদি ভাল থাকে পরবর্তীতে আপনাকে চাইতে হবে না নিজে থেকেই অনেক বেশি দিবে।
২। আপনি যদি অনেক ভালো কাজ করেন এবং ক্লায়েন্ট যদি তারপরও খুব বাজে ভাবে বলে কাজ ভাল হয়নি অথবা রেটিং খারাপ দেয় অথবা আপনার সঙ্গে রাগ দেখায়। তবুও তাঁর সঙ্গে খুবই মিষ্টি সুরে কথা বলুন । ভুলেও রাগ দেখানো যাবে না কারণ ক্লাইন্ট হচ্ছে লক্ষী।
৩। প্রতিবার কাজ জমা দেয়ার সময় সুন্দর করে বলুন । আশা করি আমার কাজটি আপনার ভালো লেগেছে । যদি ভালো না লাগে অথবা আবারও ঠিক করে দিতে হয় বা নতুন করে করতে হয় তবে বিনা সংকোচে আমাকে বলবেন । আমি পুনরায় করে দেয়ার চেষ্টা করব। কারণ ক্লায়েন্ট সেটিসফেকশন ইজ মাই ফার্স্ট ডিউটি ।
যেহেতু টাকা খরচ করে ক্লায়েন্ট আপনাকে অর্ডার করেছে এবং আপনার কাজ ক্লায়েন্টের পছন্দ নাও হতে পারে । এইজন্য আপনাকে ওয়ান স্টার রেটিং দিতে পারে এটা সম্পূর্ণ অধিকার রয়েছে । তাই বলে ক্লায়েন্টকে ওয়ান স্টার রেটিং দেয়া যাবেনা । সব সময় ফাইভ স্টার দিন এবং তার প্রশংসা করুন । আপনার কাজ ভালো হলে পুনরায় আসবে আপনার কাছে কাজ করাতে।
৪। কোন কাজ শুরু করার পূর্বে কাজ সম্পর্কে ভালোভাবে জেনে নিন ক্লায়েন্টের কাছ থেকে। তিনি কি চাচ্ছেন সেটা ভালোভাবে বুঝতে চেষ্টা করুন । না বুঝলে বারবার জিজ্ঞেস করেন । যতক্ষণ ক্লিয়ার হবেন না ততক্ষণ জানতে চান । তাতে ক্লায়েন্ট বিরক্ত হোক সমস্যা নেই কিন্তু তাড়াহুড়ো করে কাজ করতে যাবেন না । এর ফলে কাজ তো ভালো করতেই পাবেন না । সাথে একটা খারাপ রিভিউ পাওয়ার চান্স রয়েছে সাথে অর্ডার ক্যানসেল।
৫।ডেলিভারি ফাইল গুলো খুব সুন্দর করে সাজাবেন । যেমন Folder Name: Main Files Source files Docx Files Pdf Files Bonus Files. বিভিন্ন কাজের জন্য বিভিন্ন রকম ফোল্ডার হতে পারে তবে এভাবে সাজিয়ে Zip করে দিবেন । মনে রাখবেন : অর্ডার যত কম বাজেটের হোক না কেন যখন ডেলিভারি দিবেন, কিছু না কিছু রিলেটেড বোনাস দেয়ার চেষ্টা করবেন ।আশা করি সবাই এটা মনে রাখলে অনেক উপকৃ্ত হবেন।
Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url